extra virgin coconut oil
How to Make

কিভাবে ফার্মেনটেশন পদ্ধতিতে একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল তৈরী করবেন

আমরা কম বেশি সবাই একট্রা ভার্জিন নারকেল তেলের উপকারে কথা জানি। তাই নতুন করে একট্রা ভার্জিন নারকেল তেলের উপকারের কথা না বলে বরং বলি কিভাবে এই তেল তৈরী করতে হয়। একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল বানানোর সহজ এবং সঠিক পদ্ধতি আপনাদের দেখাবো। যাতে আপনারা সহজেই ঘরে বসে শরীরের জন্য উপকারী এই একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল তৈরী করতে পারেন।  অনেকেউ বলে থাকেন একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল সরাসরি চুলায় জ্বাল দিয়ে তৈরী করতে হয়। আসলেই তাতে একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল হয় না। একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল সরাসরি সূর্য্য অথবা আগুনের তাপে তৈরী করা যাবে না। একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল তৈরীর সঠিক পদ্ধতি হলো ফার্মেনটেশন বা গাজন পদ্ধতি। এই পদ্ধতিতেই আপনাদের তৈরী করে দেখাবো একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল।

একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল তৈরী করতে আমাদের কয়েকটা ধাপে যেতে হবে। সেই ধাপগুলো নিছে আলোচনা করছি।

প্রথম ধাপ: নারকেল থেকে দুধ বের করা

একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল তৈরী করতে যে প্রথমেই আমাদের নারকেল থেকে দুধ বের করতে হবে সেটা মনে করি কমবেশি আমরা জানি। দুধ বের করার জন্য কয়েকটা পদ্ধতি আছে। নারকেল কেটে কুরিয়ে হাতের সাহায্যে অথবা ব্লেন্ডারের সাহায্যে নারকেল থেকে দুধ বের করতে পারেন।

দ্বিতীয় ধাপ: দুধ থেকে ক্রিম আলাদা করা

দুধ থেকে ক্রিম আলাদা করার জন্য একটু সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে। যাতে করে আপনি ম্যাক্সিমাম ক্রিম আলাদা করতে পারেন। ক্রিম আলাদা করার জন্য নারকেলের দুধ একটা পাত্রে রেখে ফ্রিজের নরমাল তাপমাত্রায় ৮-১০ ঘন্টা ফ্রিজের নরমালে রেখে দিন। তারপর বের করুন দেখুন ক্রিম আর দুধ আলাদা হয়ে গেছে। উপরের অংশ শক্ত হবে। এখন ক্রিমটুকু সতর্কতার সাথে আলাদা করুন। আসলে এই ক্রিম থেকেই আমরা আমাদের বহুল কাংখিত একট্রা ভার্জিন নারকেল তেল তৈরী করবো।

তৃতীয় ধাপ: ক্রিম থেকে তেল তৈরী।

এখন সবচেয়ে কঠিন ধাপে আমরা চলে এসেছি। সম্পূর্ণ ক্রিমটুকু একটু এয়ার টাইট বাক্সে রেখে এই বক্সকে একটা কাপড় বা তোয়ালে দিয়ে পেচিয়ে আর একটা এয়ার টাইট পাত্রে ২৪ থেকে ৩৬ ঘণ্টা রেখে দেন। (সময়টা নির্ভর করে সাধারনতো কখন আপনি রাখছেন সেই সময়ের তাপমাত্রার উপর এখন আমাদের দেশে জুন-জুলাইতে একটু তাপমাত্রা বেশি থাকে। শীত কালে এটা ৪৮ ঘণ্টা রাখতে হবে) রাখার পর দেখবেন ক্রিম থেকে তেল আলাদা হয়ে গেছে এখানে তিনটা স্তর পড়বে। প্রথম স্তর হবে তেলের মাঝের স্তরে দই এবং নিচের স্তরে পানি। এখন এখান থেকে তেল আলাদা করার জন্য একটু সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। প্রথমেই যেটা আপনি করতে পারেন একটু ফ্রিজে রেখে দিলে তেল আর দই জমে যাবে তাতে করে আপনি পানি আলাদা করতে পারবেন সহজেই। এরপর আপনি ফ্রিজ থেকে বের করে একটু সময় বাইরে বের করে রাখেন।

 

Leave a Reply